ঢাকা ১১:০০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

এসএসসিতে কোটচাঁদপুর উপজেলার প্রথম হয়েছে মিলা

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৮:৪৯:২২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর ২০২২
  • / ৮২৯ বার পড়া হয়েছে
কোটচাঁদপুর প্রতিনিধিঃ  এসএসসিতে উপজেলার প্রথম হয়েছেন কানিজ ফাতিমা (মিলা)। সে কোটচাঁদপুর বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী। ফাতিমা পড়া-লেখা করে ডাক্তার হতে চান।  সমাজের হতদরিদ্র মানুষের পাশে থেকে কাজ করার ও আশা প্রকাশ করেন তিনি।
জানা যায়,এ বছর কোটচাঁদপুর উপজেলার ৩১ টি প্রতিষ্ঠান থেকে ৩০৮৫ জন ছাত্র /ছাত্রী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেন। এরমধ্যে ১৮৫৯ জন উর্ত্তীন হন। এ প্লাস পেয়েছেন ১৯২ জন। কানিজ ফাতিমা মিলা তাদেরই একজন। সে ১১০৭ নাম্বার পেয়ে কোটচাঁদপুর উপজেলার প্রথম স্থান অর্জন করেছেন।
মিলার পড়া-লেখার হাতে খড়ি কোটচাঁদপুরের ডেফোডিল প্রিক্যাডেট স্কুলে। সে ৫ ম ও ৮ ম শ্রেনীতে ট্র্যালেন্টপুলে বৃত্তি পান বলে জানা গেছে। সে উপজেলার হরিণদীয়া গ্রামের রফিকুল ইসলাম মুঙ্গলা ও মোছাঃ কল্পনা খাতুনের মেয়ে।
কানিজ ফাতিমা বলেন,আমি পড়া-লেখা করে ডাক্তার হতে চাই। কাজ করতে চাই দরিদ্র ও হতদরিদ্র মানুষের পাশে থেকে।
এমন ফলাফলের পেছনে কার বেশি অবদান রয়েছে, এমন প্রশ্নে মিলা বলেন,প্রথম দাবিদার আমার মা-বাবা। এরপর বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

এসএসসিতে কোটচাঁদপুর উপজেলার প্রথম হয়েছে মিলা

আপডেট সময় ০৮:৪৯:২২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর ২০২২
কোটচাঁদপুর প্রতিনিধিঃ  এসএসসিতে উপজেলার প্রথম হয়েছেন কানিজ ফাতিমা (মিলা)। সে কোটচাঁদপুর বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী। ফাতিমা পড়া-লেখা করে ডাক্তার হতে চান।  সমাজের হতদরিদ্র মানুষের পাশে থেকে কাজ করার ও আশা প্রকাশ করেন তিনি।
জানা যায়,এ বছর কোটচাঁদপুর উপজেলার ৩১ টি প্রতিষ্ঠান থেকে ৩০৮৫ জন ছাত্র /ছাত্রী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেন। এরমধ্যে ১৮৫৯ জন উর্ত্তীন হন। এ প্লাস পেয়েছেন ১৯২ জন। কানিজ ফাতিমা মিলা তাদেরই একজন। সে ১১০৭ নাম্বার পেয়ে কোটচাঁদপুর উপজেলার প্রথম স্থান অর্জন করেছেন।
মিলার পড়া-লেখার হাতে খড়ি কোটচাঁদপুরের ডেফোডিল প্রিক্যাডেট স্কুলে। সে ৫ ম ও ৮ ম শ্রেনীতে ট্র্যালেন্টপুলে বৃত্তি পান বলে জানা গেছে। সে উপজেলার হরিণদীয়া গ্রামের রফিকুল ইসলাম মুঙ্গলা ও মোছাঃ কল্পনা খাতুনের মেয়ে।
কানিজ ফাতিমা বলেন,আমি পড়া-লেখা করে ডাক্তার হতে চাই। কাজ করতে চাই দরিদ্র ও হতদরিদ্র মানুষের পাশে থেকে।
এমন ফলাফলের পেছনে কার বেশি অবদান রয়েছে, এমন প্রশ্নে মিলা বলেন,প্রথম দাবিদার আমার মা-বাবা। এরপর বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ।