1. mrrahel7@gmail.com : Admin : Mahbubur Rahel
  2. samadpress96@gmail.com : Samad Ahmed : Samad Ahmed
কুলাউড়ায় তরুণী ধর্ষণের চেষ্টার শিকার,প্রধান আসামী গ্রেফতার | moulvibazar24.com
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০০ অপরাহ্ন
শিরোনাম
মৌলভীবাজার ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা চলতি বছরের শেষ নাগাদ দেশে ৫জি সেবা চালু করা হবে:সজীব ওয়াজেদ জয় লন্ডনে ব্রিটিশ-বাংলাদেশি তরুণীকে হত্যা সরকারি গাড়ি চুরির পর দুর্ঘটনা,পথেই ফেলে পালাল চোর মৌলভীবাজার জেলা কারাগারে কারাবন্দীদের মাদকের কুফল সম্পর্কে অবগত করার জন্য মাদক বিরোধী আলোচনা সভা পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ শ্রীমঙ্গলে অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান কমছে মৌলভীবাজারে করোনা আক্রান্ত রোগী শ্রীমঙ্গল চা ব্যবসায়ীদের নিয়ে ফিনলে টি কোম্পানির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন কুয়েত এর আয়োজনে এশিয়ান ড্রেজার লিগ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট

কুলাউড়ায় তরুণী ধর্ষণের চেষ্টার শিকার,প্রধান আসামী গ্রেফতার

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

মৌলভীবাজার২৪ ডেস্কঃ মৌলভীবাজারে কুলাউড়ায় রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) এক তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। এর প্রধান আসামী আব্দুল আলী (৪০) কে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টম্বর) বিকেল ৪ টার দিকে হাজিপুর ইউনিয়নের ভুইগাঁও গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

আব্দুল আলী পৃথিমপাশা ইউনিয়নের আমলী গ্রামেন মৃত জব্বার আলীর ছেলে।

কুলাউড়া থানার ওসি তদন্ত মোঃ আমিনুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মামলায় আরোও যারা আছেন তাদেরকে গ্রেফতার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

জানাযায়, ওই রাতেই সালিশে বসেন স্থানীয়রা। আর সেখানেই ধর্ষণ চেষ্টায় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে মেয়েটির ‘মানহানির’ মূল্য বাবদ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করে বিষয়টি মীমাংসা করা হয়েছে।।

সালিশকারীদের দাবি, মেয়েটির যে ‘মানহানি’ হয়েছে, সেটির মূল্য হিসেবে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, জরিমানার অর্থ পরিশোধের জন্য সেই ব্যক্তিকে পাঁচ মাস সময়ও দেওয়া হয়েছে। ঘটনাটি উপজেলার পৃথিমপাশা ইউনিয়নে ঘটেছে।
মেয়েটির প্রতিবেশী ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য নেহার বেগম। তিনি জানান, ভিকটিমের মা উনার বাসায় কাজ করেন। তার বাবা নেই।রোববার দুপুরে মেয়েটির মা বাড়িতে ছিলেন না। সেই সুযোগে প্রতিবেশী একজন মেয়েটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছে বলে জানিয়েছে মেয়েটি।
ঘটনাটির সালিশকারীদের একজন তৈয়ব আলী।

তিনি বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর স্থানীয়রা সালিশে বসেছিল। তখন ওদের (ভিকটিমের পরিবার) বলা হয়েছিল, আপনারা যদি আইনের আশ্রয় নিতে চান, তাহলে সেটা নিতে পারেন। অথবা বিষয়টি এলাকায় শেষ করতে পারেন। তার (মেয়েটির) যে মানহানি হয়েছে, সেই মানহানির মূল্য হিসবে তাকে ২৫ হাজার টাকা দেওয়া হবে। পরে উভয় পক্ষের সম্মতিতে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বছর ২১শে অক্টোবর ধর্ষণের ঘটনা মীমাংসায় সালিশ ফৌজদারি অপরাধ হিসাবে গণ্য করা হবে না কেন জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।
এ বিষয়ে তৈয়ব আলীকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, আমরা তো তাদের বলছি, আপনারা আইনের আশ্রয় নেন, সমস্যা নেই। ভিকটিম যদি আইনের আশ্রয় না নেয়, কেউ তো তাদের ধরে নিয়ে আইনের আশ্রয় দিতে পারবে না।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, মীমাংসাকালে ১০০ টাকার স্ট্যাম্পে ওই তরুণী ও সালিশকারীদের স্বাক্ষর রাখা হয়েছে।

 

এ সংক্রান্ত আরোও নিউজ