ঢাকা ০৬:০৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কোদালিছড়ার সুফল পেয়েছে মৌলভীবাজার পৌরবাসী

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:০৫:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪
  • / ৪১০ বার পড়া হয়েছে

মৌলভীবাজার২৪ ডেস্কঃ কয়েকদিনের বৃষ্টিতে মৌলভীবাজার পৌর শহরে কোথাও কোন জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়নি।  পৌরবাসীর দাবী এর  একমাত্র কারণ পৌর শহরের কোদালিছড়ার খনন করায় এর সুফল পেয়েছি।

শহরবাসী জানান,শহরের পানি নিষ্কাশনের একমাত্র খাল কোদালি ছড়া। অন্তত আড়াই কিলোমিটার এর এই ছড়া হয়ে পুরো শহরের পানি গিয়ে হাইল হাওরে পড়ে। দীর্ঘদিন খনন না হওয়ায় শতাব্দীর প্রাচীন এই ছড়া ভরাট হয়ে যাওয়ায় প্রতিবছর বর্ষা এলেই শহরের অধিকাংশ এলাকা জলমগ্ন থাকে। এমনকি ভারী বৃষ্টিপাত হলে শহরের বড় অংশে ভয়াবহ জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হত।


পৌর শহরে বসবাসকারী আব্দুল মুহিত জানান পৌরসভার মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান পৌরসভার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে উনার দূর-দুসি চিন্তাভাবনায় আজ আমরা পৌরবাসী জলাবদ্ধতা থেকে রেহাই পাচ্ছি এর কারণ কুদালিছড়া।

পৌর শহরে বসবাসকারী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানান, পৌর শহরের কয়েকটি ওয়ার্ডে আমাদের অবহেলার কারণে এখনও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয় এর একমাত্র কারণ হচ্ছে আমাদের সচেতনতার অভাব অনেকেই আমরা ড্রেনের ভিতরে ময়লা আবর্জনা ফেলে রাখি এর কারণে পানি নিষ্কাশন হতে পারে না ড্রেনের পানির থেকে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা।

লন্ডন প্রবাসী শফিক আহমদ বলেন আমি পৌর শহরের বাসিন্দা আমি কখনো চিন্তা করিনি মৌলভীবাজার পৌর শহরের ভিতরে এ কুদালি ছড়ায় নৌকা চলবে আমি গত কিছুদিন আগে এখানে নৌকা ওয়াকওয়ে দেখে আনন্দ লাগের।আমি আমার ব্যক্তিগত এবং প্রবাসীদের পক্ষ থেকে পৌর মেয়রকে অভিনন্দন ও সাধুবাদ জানাই।


এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান বলেন,শহরে পানি নিষ্কাশনের একমাত্র খাল কোদালিছড়া খননের কাজ দ্রুত গতিতে শেষ হয়েছে । শহরের জলাবদ্ধতা নিরসন ও নাগরিকদের বিনোদন খরা ঘোচাতে মৌলভীবাজার পৌরসভা ২৫ কোটি টাকার এই প্রকল্প গ্রহণ করেছে । আর অর্থায়ন করছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

এদিকে কুদালিছড়ার বিভিন্ন অংশে কচুরিপানা এবং ময়লা আবর্জনার সৃষ্টি হলে তাৎক্ষণিক পৌরসভার কর্মীরা অপসারণ করে তাই পানি দ্রুত নিষ্কাশন হয়ে যায়।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

কোদালিছড়ার সুফল পেয়েছে মৌলভীবাজার পৌরবাসী

আপডেট সময় ০৩:০৫:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

মৌলভীবাজার২৪ ডেস্কঃ কয়েকদিনের বৃষ্টিতে মৌলভীবাজার পৌর শহরে কোথাও কোন জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়নি।  পৌরবাসীর দাবী এর  একমাত্র কারণ পৌর শহরের কোদালিছড়ার খনন করায় এর সুফল পেয়েছি।

শহরবাসী জানান,শহরের পানি নিষ্কাশনের একমাত্র খাল কোদালি ছড়া। অন্তত আড়াই কিলোমিটার এর এই ছড়া হয়ে পুরো শহরের পানি গিয়ে হাইল হাওরে পড়ে। দীর্ঘদিন খনন না হওয়ায় শতাব্দীর প্রাচীন এই ছড়া ভরাট হয়ে যাওয়ায় প্রতিবছর বর্ষা এলেই শহরের অধিকাংশ এলাকা জলমগ্ন থাকে। এমনকি ভারী বৃষ্টিপাত হলে শহরের বড় অংশে ভয়াবহ জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হত।


পৌর শহরে বসবাসকারী আব্দুল মুহিত জানান পৌরসভার মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান পৌরসভার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে উনার দূর-দুসি চিন্তাভাবনায় আজ আমরা পৌরবাসী জলাবদ্ধতা থেকে রেহাই পাচ্ছি এর কারণ কুদালিছড়া।

পৌর শহরে বসবাসকারী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানান, পৌর শহরের কয়েকটি ওয়ার্ডে আমাদের অবহেলার কারণে এখনও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয় এর একমাত্র কারণ হচ্ছে আমাদের সচেতনতার অভাব অনেকেই আমরা ড্রেনের ভিতরে ময়লা আবর্জনা ফেলে রাখি এর কারণে পানি নিষ্কাশন হতে পারে না ড্রেনের পানির থেকে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা।

লন্ডন প্রবাসী শফিক আহমদ বলেন আমি পৌর শহরের বাসিন্দা আমি কখনো চিন্তা করিনি মৌলভীবাজার পৌর শহরের ভিতরে এ কুদালি ছড়ায় নৌকা চলবে আমি গত কিছুদিন আগে এখানে নৌকা ওয়াকওয়ে দেখে আনন্দ লাগের।আমি আমার ব্যক্তিগত এবং প্রবাসীদের পক্ষ থেকে পৌর মেয়রকে অভিনন্দন ও সাধুবাদ জানাই।


এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান বলেন,শহরে পানি নিষ্কাশনের একমাত্র খাল কোদালিছড়া খননের কাজ দ্রুত গতিতে শেষ হয়েছে । শহরের জলাবদ্ধতা নিরসন ও নাগরিকদের বিনোদন খরা ঘোচাতে মৌলভীবাজার পৌরসভা ২৫ কোটি টাকার এই প্রকল্প গ্রহণ করেছে । আর অর্থায়ন করছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

এদিকে কুদালিছড়ার বিভিন্ন অংশে কচুরিপানা এবং ময়লা আবর্জনার সৃষ্টি হলে তাৎক্ষণিক পৌরসভার কর্মীরা অপসারণ করে তাই পানি দ্রুত নিষ্কাশন হয়ে যায়।