ঢাকা ০১:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পুলিশের অভিযানে মৌলভীবাজার খুনের মূল আসামী গ্রেফতার

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:১৫:৫০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ জুন ২০২৪
  • / ১৮৮২ বার পড়া হয়েছে

মৌলভীবাজার২৪ ডেস্কঃ মৌলভীবাজারে পর্বঃ শত্রুতা জেট ধরে স্কুল ছাত্র খুনের ঘটনায়  মডেল থানা পুলিশ ২ টি বিশেষ আভিযানিক টিম মৌলভীবাজার সদর থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করিয়া রাতে হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত আনোয়ার হোসেন(৩০) গ্রেফতার করে।

রোববার (২ জুন)  রাত সাড়ে ১০ টার দিকে শহরের চুবড়া  ব্রীকফিল্ড এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় এবং পরবর্তীতে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার পূর্বক জব্দ করা হয়।

আনোয়ার হোসেন রাজনগর উপজেলার সুরিখাল গ্রামের  মোঃ রফিক মিয়ার ছেলে। বর্তমান তারা রঘুনন্দনপুর চুবড়া ব্রীকফিল্ড এলাকায় বসবাস করে আসছিল।

জানাযায়,পুলিশ সুপার নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল প্রত্যক্ষ তত্ত্ববধানে অফিসার ইনচার্জ কে এম নজরুল পিপিএম এবং পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ূন কবীরদ্বয়ের নেতৃত্বে মৌলভীবাজার সদর মডেল থানার ০২ (দুই) টি বিশেষ আভিযানিক টিম মৌলভীবাজার সদর থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করিয়া তাকে গ্রেফতার করা হয়।

উল্লেখ্য যে, রোববার ২ জুন রাত ৮টার দিকে ঘটনাস্থল মৌলভীবাজার সদর মডেল থানাধীন মৌলভীবাজার পৌরসভাস্থ রঘুনন্দনপুর, চুবড়া ব্রীকফিল্ড এলাকায় জনৈক রফিক মিয়ার একতলা বিশিষ্ট বিল্ডিংয়ের পূর্ব পাশে রাস্তার উপর ভিকটিম তানজিম চৌধুরী জিসান (১৪), জখমী মোবারক মিয়া (১৮) ও শাওন মিয়া(১৫) রঘুনন্দনপুর হইতে তাহার বাসায় যাওয়ার পথে বর্ণিত ঘটনাস্থলে পৌছাইলে বিপরীত দিকে থেকে আসা বিবাদী আনোয়ার হোসেন (৩০) এর শরীরে তানজিম চৌধুরী জিসান এর হাত লাগিলে উক্ত বিবাদী রাগান্বিত হইয়া তানজিম চৌধুরী জিসানকে চর-থাপ্পর মারে। তানজিম চৌধুরী জিসান সহ তাহার সাথে থাকা মোবারক ও শাওন ইহার প্রতিবাদ করিলে বিবাদী আনোয়ার হোসেনের হাতে থাকা ধারালো ছুরি দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে তানজিম চৌধুরী জিসান এর মাথার পিছনে ঘাড়ে ঘাই মারিয়া গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে। পরবর্তীতে জখমী মোবারক মিয়া(১৮) এর বাম হাতের বাহুতে ঘাই মারিয়া কাটা রক্তাক্ত জখম করে এবং জখমী শাওন মিয়া (১৫) কে বাম হাতের কুনুয়ে তিনটি জখম করে। বিবাদীর আঘাতে তানজিম চৌধুরী জিসান গুরুতর আহত হইয়ে মাটিতে পড়িয়া যায় এবং প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। জখমীদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হইলে বর্ণিত বিবাদী ঘটনাস্থল হইতে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে আশপাশের লোকজন জখমীদেরকে উদ্ধার পূর্বক চিকিৎসার জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তানজিম চৌধুরী জিসান (১৪) ও মোবারক মিয়া (১৮) দ্বয়ের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন এবং ০২ নং সাক্ষী জখমী শাওন মিয়া(১৫) কে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করেন। তানজিম চৌধুরী জিসান ও জখমী মোবারক মিয়া (১৮) দ্বয়কে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে  তানজিম চৌধুরী জিসান (১৪) কে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত্যু ঘোষনা করেন।

জিসান এর পিতা তাইদুল ইসলাম চৌধুরী বাদী হইয়া থানায় এজাহার দায়ের করিলে মৌলভীবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-০৬, তারিখ-০৩/০৬/২০২৪ খ্রিঃ, ধারা -৩২৪/326/307/302  পেনাল কোড রুজু করা হয়।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

পুলিশের অভিযানে মৌলভীবাজার খুনের মূল আসামী গ্রেফতার

আপডেট সময় ০৩:১৫:৫০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ জুন ২০২৪

মৌলভীবাজার২৪ ডেস্কঃ মৌলভীবাজারে পর্বঃ শত্রুতা জেট ধরে স্কুল ছাত্র খুনের ঘটনায়  মডেল থানা পুলিশ ২ টি বিশেষ আভিযানিক টিম মৌলভীবাজার সদর থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করিয়া রাতে হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত আনোয়ার হোসেন(৩০) গ্রেফতার করে।

রোববার (২ জুন)  রাত সাড়ে ১০ টার দিকে শহরের চুবড়া  ব্রীকফিল্ড এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় এবং পরবর্তীতে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার পূর্বক জব্দ করা হয়।

আনোয়ার হোসেন রাজনগর উপজেলার সুরিখাল গ্রামের  মোঃ রফিক মিয়ার ছেলে। বর্তমান তারা রঘুনন্দনপুর চুবড়া ব্রীকফিল্ড এলাকায় বসবাস করে আসছিল।

জানাযায়,পুলিশ সুপার নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল প্রত্যক্ষ তত্ত্ববধানে অফিসার ইনচার্জ কে এম নজরুল পিপিএম এবং পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ূন কবীরদ্বয়ের নেতৃত্বে মৌলভীবাজার সদর মডেল থানার ০২ (দুই) টি বিশেষ আভিযানিক টিম মৌলভীবাজার সদর থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করিয়া তাকে গ্রেফতার করা হয়।

উল্লেখ্য যে, রোববার ২ জুন রাত ৮টার দিকে ঘটনাস্থল মৌলভীবাজার সদর মডেল থানাধীন মৌলভীবাজার পৌরসভাস্থ রঘুনন্দনপুর, চুবড়া ব্রীকফিল্ড এলাকায় জনৈক রফিক মিয়ার একতলা বিশিষ্ট বিল্ডিংয়ের পূর্ব পাশে রাস্তার উপর ভিকটিম তানজিম চৌধুরী জিসান (১৪), জখমী মোবারক মিয়া (১৮) ও শাওন মিয়া(১৫) রঘুনন্দনপুর হইতে তাহার বাসায় যাওয়ার পথে বর্ণিত ঘটনাস্থলে পৌছাইলে বিপরীত দিকে থেকে আসা বিবাদী আনোয়ার হোসেন (৩০) এর শরীরে তানজিম চৌধুরী জিসান এর হাত লাগিলে উক্ত বিবাদী রাগান্বিত হইয়া তানজিম চৌধুরী জিসানকে চর-থাপ্পর মারে। তানজিম চৌধুরী জিসান সহ তাহার সাথে থাকা মোবারক ও শাওন ইহার প্রতিবাদ করিলে বিবাদী আনোয়ার হোসেনের হাতে থাকা ধারালো ছুরি দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে তানজিম চৌধুরী জিসান এর মাথার পিছনে ঘাড়ে ঘাই মারিয়া গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে। পরবর্তীতে জখমী মোবারক মিয়া(১৮) এর বাম হাতের বাহুতে ঘাই মারিয়া কাটা রক্তাক্ত জখম করে এবং জখমী শাওন মিয়া (১৫) কে বাম হাতের কুনুয়ে তিনটি জখম করে। বিবাদীর আঘাতে তানজিম চৌধুরী জিসান গুরুতর আহত হইয়ে মাটিতে পড়িয়া যায় এবং প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। জখমীদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হইলে বর্ণিত বিবাদী ঘটনাস্থল হইতে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে আশপাশের লোকজন জখমীদেরকে উদ্ধার পূর্বক চিকিৎসার জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তানজিম চৌধুরী জিসান (১৪) ও মোবারক মিয়া (১৮) দ্বয়ের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন এবং ০২ নং সাক্ষী জখমী শাওন মিয়া(১৫) কে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করেন। তানজিম চৌধুরী জিসান ও জখমী মোবারক মিয়া (১৮) দ্বয়কে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে  তানজিম চৌধুরী জিসান (১৪) কে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত্যু ঘোষনা করেন।

জিসান এর পিতা তাইদুল ইসলাম চৌধুরী বাদী হইয়া থানায় এজাহার দায়ের করিলে মৌলভীবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-০৬, তারিখ-০৩/০৬/২০২৪ খ্রিঃ, ধারা -৩২৪/326/307/302  পেনাল কোড রুজু করা হয়।