1. mrrahel7@gmail.com : Admin : Mahbubur Rahel
  2. samadpress96@gmail.com : Samad Ahmed : Samad Ahmed
মাধবপুরে আত্বহত্যা প্ররোচনায় স্বামী গ্রেফতার , | moulvibazar24.com
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
মৌলভীবাজার ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা চলতি বছরের শেষ নাগাদ দেশে ৫জি সেবা চালু করা হবে:সজীব ওয়াজেদ জয় লন্ডনে ব্রিটিশ-বাংলাদেশি তরুণীকে হত্যা সরকারি গাড়ি চুরির পর দুর্ঘটনা,পথেই ফেলে পালাল চোর মৌলভীবাজার জেলা কারাগারে কারাবন্দীদের মাদকের কুফল সম্পর্কে অবগত করার জন্য মাদক বিরোধী আলোচনা সভা পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ শ্রীমঙ্গলে অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান কমছে মৌলভীবাজারে করোনা আক্রান্ত রোগী শ্রীমঙ্গল চা ব্যবসায়ীদের নিয়ে ফিনলে টি কোম্পানির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন কুয়েত এর আয়োজনে এশিয়ান ড্রেজার লিগ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট

মাধবপুরে আত্বহত্যা প্ররোচনায় স্বামী গ্রেফতার ,

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৮ জুন, ২০২১
মাধবপুর প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার রসুলপুর গ্রামে প্রেমিকা কে ঘরে না তুলে বিষপানে আত্বহত্যার প্ররোচনায় মামলায় প্রেমিক আব্দুল আহাদ কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার রাতে মাধবপুর থানার কাশিমনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক উত্তম কুমার দাস এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ চৌমহনী ইউনিয়নের মদনপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে আব্দুল আহাদ কে গ্রেফতার করে।
ধৃত আব্দুল আহাদ উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের মৃত রফিক মিয়ার ছেলে। রসুলপুর গ্রামের আব্দুল আহাদ মিয়ার সঙ্গে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলার সোনামুড়া গ্রামের সালমা বেগম (৩২) নামে প্রবাস ফেরত এক নারীর মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে ।
গত ৮জুন সালমা বেগম রসুলপুর গ্রামের আব্দুল আহাদের বাড়িতে এসে তাকে ঘরে তুলে নিতে চাপ সৃষ্টি করে। আব্দুল আহাদ রাজি না হওয়ায় সালমা বেগম পুকুর পাড়ে বিষ পান করে। পরে আশংকাজন অবস্হায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। সালমার মা জাহানারা বেগম জানান সালমা ওমানে থাকাকালীন মোবাইল ফোনে তাদের প্রেমের সম্পর্ক হয়, গত ৩ মাস আগে সালমা উমান থেকে দেশে আসে।পরে আব্দুল আহাদের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। স্বামীর দাবি নিয়ে সালমা আহাদের বাড়ি গেলে তাকে ঘরে না উঠিয়ে বিষ খাইয়ে দিয়ে হত্যা করা হয়।
এব্যাপারে সালমার মা জাহারানা বেগম গত ১০জুন আব্দুল আহাদ কে প্রধান আসামি করে মাধবপুর থানায় একটি মামলা রুজু করেন। এর পর থেকে আব্দুল আহাদ আত্বগোপনে চলে যায়।মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরির্দশক উত্তম কুমার দাস তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে মামলার ৮দিনের মাথায় প্রধান আসামি আব্দুল আহাদ কে গ্রেফতার করেন। মাধবপুর থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ সংক্রান্ত আরোও নিউজ