ঢাকা ০৫:০৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজারে বন্যায় সড়ক বিভাগের ৬৭ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০২:৪১:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪
  • / ১৫৫ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি:  লাগাতার বন্যায় মৌলভীবাজারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ৩৭৬ কি:মি: সড়কের ২০ কিমি: সড়ক ধস, পাহাড় আছড়ে ও জলে তলিয়ে গিয়ে প্রায় ৬৭ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল আর লাগাতার বৃষ্টিতে জেলার ১৭টি সড়কের সড়কের মধ্যে ৯টি সড়কের বিভিন্ন জায়গা তলিয়ে গেছে। আর নদ-নদীর পানি বৃদ্ধির প্রভাবে নিম্নাঞ্চলের সড়ক তলিয়ে গেছে। আর এই তলিয়ে যাওয়া সড়ক দিয়ে ভারি যানবাহন চলাচল করায় আরো ধেবে যাচ্ছে সওজ’র বিভিন্ন এলাকার সড়কগুলো ।

সরেজমিনে আরো দেখা যায়, সড়ক বিভাগের অধীনে থাকা রাজনগর-কুলাউড়া,-জুড়ি- বড়লেখা-বিয়ানীবাজার-শেওলা-চারখাই সড়কের ৭.৮শ কিমি:, জুড়ী-লাঠিটিলা সড়কের ২.২শ কিমি:, জুড়ী-ফুলতলা-বটুলী সড়কের ৫.৮শ কিমি:, মৌলভীবাজার-শমসেরনগর-চাতলা চেকপোষ্ট সড়কের শুন্য দশমিক ৪শ কিমি:, কুলাউড়া-শমসেরনগর-শ্রীমঙ্গল সড়কের শুণ্য দশমিক ২৫০ কিমি:, শাহবাজপুর-জলঢুপ সড়কের শুণ্য দশমিক ৫শ কিমি:, বড়লেখা-শাহবাজপুর-লাতু সড়কের শুণ্য দশমিক ২শ কিমি:, হামরকোনা এন-২০৭ পুরাতন এলাইনমেন্ট সড়কের শুণ্য দশমিক ৮৫০ কিমি:, জুড়ী (ক্লিবডন চা বাগান)-কুলাউড়া (গাজীপুর) সড়কের ২.৫শ কিমি:সহ মোট ২০ দশমিক ৫শ কিলোমিটার সড়কের মারাত্মক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এদিকে রাজনগর-কুলাউড়া-জুড়ী-বড়লেখা-বিয়ানীবাজার ক্ষতিগ্রস্থ সড়কের চেইনেজ ১৪+৫শ কিমি: হতে ১৪+ ৭শ কিমি: সড়কের স্থানীয়রা জানান, ওই সড়কে দীর্ঘস্থায়ী বন্যায় প্রায় ৭ কিমি: সড়ক তলিয়ে গিয়ে নিচে ধেবে গেছে। ঢাকা-মৌলভীবাজার-বিয়ানীবাজারগামী সড়কে ভারি যানবাহন চলাচল করে দিন দিন আরো ক্ষতিরমুখে পড়েছে। তলিয়ে যাওয়া সড়কে যে কোন সময় ঘটতে পারে মারাত্বক সড়ক দূর্ঘটনা। তারা দ্রুত ভরাট করে গাড়ি চলাচলের উপযোগী করার দাবী তুলেন।

এদিকে মৌলভীবাজার সড়ক বিভাগ জানিয়েছে, তাদের সড়কের ওই স্থানগুলো দীর্ঘস্থায়ী বন্যা ও পাহাড়ি ঢলে প্রতিনিয়ত চলাচলের অনুপযোগী হয়ে দাড়িয়েছে। জলের নিচে তলিয়ে যাওয়া সড়কের কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে এখনো পরিপূর্ণভাবে বলা যাচ্ছে না। বন্যার পানি সম্পূর্ণ কমে গেলে পুরো ক্ষয়ক্ষতির পরিমান জানা যাবে। সড়কের বহু জায়গা নিচু থাকায় বন্যাক্রান্ত হচ্ছে বেশি। ওই জয়গাগুলো উচু করে ভরাটসহ স্ংস্কার করতে হবে। এর আগেও ঘর্ণিঝড় রেমাল’র তান্ডবে তাদের ২৬ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হলেও ফের লাগাতার বন্যায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমান আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

 

এদিকে মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ কায়সার হামিদ মৌলভীবাজার২৪ ডট কমকে বলেন, জেলাজুড়ে আমাদের ৩৭৬ কিমি: সড়ক রয়েছে। সওজের ৯টি সড়কের ২০ কিমি: সড়ক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এই সড়কে স্বল্প মেয়াদি সংস্কার কাজ করলে ৯ কোটি ৪০ লাখ ও দীর্ঘ মেয়াদী কাজ করা হলে ৬৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা খরচ হবে। পানি নেমে গেলে ক্ষতিগ্রস্থ সড়কের কাজের প্রস্তাব পাঠানো হবে। অনুমোদন পেলে এরই আলোকে কাজ করা হবে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

মৌলভীবাজারে বন্যায় সড়ক বিভাগের ৬৭ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

আপডেট সময় ০২:৪১:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

বিশেষ প্রতিনিধি:  লাগাতার বন্যায় মৌলভীবাজারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ৩৭৬ কি:মি: সড়কের ২০ কিমি: সড়ক ধস, পাহাড় আছড়ে ও জলে তলিয়ে গিয়ে প্রায় ৬৭ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল আর লাগাতার বৃষ্টিতে জেলার ১৭টি সড়কের সড়কের মধ্যে ৯টি সড়কের বিভিন্ন জায়গা তলিয়ে গেছে। আর নদ-নদীর পানি বৃদ্ধির প্রভাবে নিম্নাঞ্চলের সড়ক তলিয়ে গেছে। আর এই তলিয়ে যাওয়া সড়ক দিয়ে ভারি যানবাহন চলাচল করায় আরো ধেবে যাচ্ছে সওজ’র বিভিন্ন এলাকার সড়কগুলো ।

সরেজমিনে আরো দেখা যায়, সড়ক বিভাগের অধীনে থাকা রাজনগর-কুলাউড়া,-জুড়ি- বড়লেখা-বিয়ানীবাজার-শেওলা-চারখাই সড়কের ৭.৮শ কিমি:, জুড়ী-লাঠিটিলা সড়কের ২.২শ কিমি:, জুড়ী-ফুলতলা-বটুলী সড়কের ৫.৮শ কিমি:, মৌলভীবাজার-শমসেরনগর-চাতলা চেকপোষ্ট সড়কের শুন্য দশমিক ৪শ কিমি:, কুলাউড়া-শমসেরনগর-শ্রীমঙ্গল সড়কের শুণ্য দশমিক ২৫০ কিমি:, শাহবাজপুর-জলঢুপ সড়কের শুণ্য দশমিক ৫শ কিমি:, বড়লেখা-শাহবাজপুর-লাতু সড়কের শুণ্য দশমিক ২শ কিমি:, হামরকোনা এন-২০৭ পুরাতন এলাইনমেন্ট সড়কের শুণ্য দশমিক ৮৫০ কিমি:, জুড়ী (ক্লিবডন চা বাগান)-কুলাউড়া (গাজীপুর) সড়কের ২.৫শ কিমি:সহ মোট ২০ দশমিক ৫শ কিলোমিটার সড়কের মারাত্মক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এদিকে রাজনগর-কুলাউড়া-জুড়ী-বড়লেখা-বিয়ানীবাজার ক্ষতিগ্রস্থ সড়কের চেইনেজ ১৪+৫শ কিমি: হতে ১৪+ ৭শ কিমি: সড়কের স্থানীয়রা জানান, ওই সড়কে দীর্ঘস্থায়ী বন্যায় প্রায় ৭ কিমি: সড়ক তলিয়ে গিয়ে নিচে ধেবে গেছে। ঢাকা-মৌলভীবাজার-বিয়ানীবাজারগামী সড়কে ভারি যানবাহন চলাচল করে দিন দিন আরো ক্ষতিরমুখে পড়েছে। তলিয়ে যাওয়া সড়কে যে কোন সময় ঘটতে পারে মারাত্বক সড়ক দূর্ঘটনা। তারা দ্রুত ভরাট করে গাড়ি চলাচলের উপযোগী করার দাবী তুলেন।

এদিকে মৌলভীবাজার সড়ক বিভাগ জানিয়েছে, তাদের সড়কের ওই স্থানগুলো দীর্ঘস্থায়ী বন্যা ও পাহাড়ি ঢলে প্রতিনিয়ত চলাচলের অনুপযোগী হয়ে দাড়িয়েছে। জলের নিচে তলিয়ে যাওয়া সড়কের কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে এখনো পরিপূর্ণভাবে বলা যাচ্ছে না। বন্যার পানি সম্পূর্ণ কমে গেলে পুরো ক্ষয়ক্ষতির পরিমান জানা যাবে। সড়কের বহু জায়গা নিচু থাকায় বন্যাক্রান্ত হচ্ছে বেশি। ওই জয়গাগুলো উচু করে ভরাটসহ স্ংস্কার করতে হবে। এর আগেও ঘর্ণিঝড় রেমাল’র তান্ডবে তাদের ২৬ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হলেও ফের লাগাতার বন্যায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমান আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

 

এদিকে মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ কায়সার হামিদ মৌলভীবাজার২৪ ডট কমকে বলেন, জেলাজুড়ে আমাদের ৩৭৬ কিমি: সড়ক রয়েছে। সওজের ৯টি সড়কের ২০ কিমি: সড়ক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এই সড়কে স্বল্প মেয়াদি সংস্কার কাজ করলে ৯ কোটি ৪০ লাখ ও দীর্ঘ মেয়াদী কাজ করা হলে ৬৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা খরচ হবে। পানি নেমে গেলে ক্ষতিগ্রস্থ সড়কের কাজের প্রস্তাব পাঠানো হবে। অনুমোদন পেলে এরই আলোকে কাজ করা হবে।