1. mrrahel7@gmail.com : Admin : Mahbubur Rahel
  2. samadpress96@gmail.com : Samad Ahmed : Samad Ahmed
মৌলভীবাজারে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে জমে উঠেছে ঈদ বাজার | moulvibazar24.com
বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০১:৩২ অপরাহ্ন

মৌলভীবাজারে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে জমে উঠেছে ঈদ বাজার

  • আপডেট সময় বুধবার, ৫ মে, ২০২১

মৌলভীবাজার২৪ ডেস্কঃ রমজানের রোজা শেষে এলো খুশির ঈদ দীর্ঘ একমাস সিয়াম সাধনার পর দরজা কড়া নাড়ছে ও মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। ঈদের আনন্দকে আরো আনন্দ ও হাসিখুশী করতে ধনী-গরীব সবাই ই চান তাদের ছেলেমেয়েদের জন্য সাধ্যমতো ঈদের নতুন জামা। তাই তো যার যার পছন্দের জামা কিনতে কেউ বা শহরে কেউবা গ্রামের বাজারে কিনছেন।

এ বছর রমজান ও বৈশাখ মাস একসাথে হওয়া মানুষের মাঝে আলাদাই উৎসব বিরাজ করছে। আবহাওয়া ভাল থাকায় ফসল ও ভাল হয়েছে এবারের ঈদের আনন্দ ও অন্য রকম হবে। বৈশ্বিক করোনা মহামারীর কারণে এমনিতেই গত বছর ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে পারেনি। এ বছর ও সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্য বিধি মেনে সরকার দোকান পাঠ শপিংমল ঈদ কে সামনে রেখে খোলার অনুমতি দিয়েছে। এতে ব্যবসায়ীরা ও আর্থিকভাবে কিছুটা হলেও লাভবান হতে পারছেন। দোকান পাঠ শপিংমল খোলে দেওয়া ব্যবসায়ীরা দোকানে নতুন উদ্যমে বেচাকেনা করতে পারছেন। ক্রেতারাও তাদের সাধ্যমতো পছন্দের পোশাক কিনতে ভীর জমাচ্ছেন মার্কেট গুলোতে। মার্কেট গুলোতে পুরুষ ক্রেতার চেয়ে মহিলাদের ভীর বেশি দেখা যাচ্ছে প্রতিটি মার্কেটে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে তাদের নিজেদের, ছেলে-মেয়েদের ও পরিবারের সদস্যদের চাহিদা মতো প্রয়োজনীয় পোশাক ও বিভিন্ন জিনিস পত্র কিনতে মার্কেট গুলোতে ভীড় জমাচ্ছেন।

অনেক বসায়ীরা বলেন অপেক্ষা থাকি বেশি বেচাকেনা করতে। যদিও বৈশ্বিক মহামারী করোনার কারণে একটি বছর যাবত ব্যবসা মন্দা যাচ্ছে। এ বছরও করোনার আঘাতে আমরা সংকিত আছি। কিছুদিন হলো সরকারের পক্ষ থেকে ব্যবসা প্রতিষ্টান খোলার অনুমতি দিয়েছেন ঈদ কে সামনে রেখে। জানি না কতোটুকু ব্যবসা করতে পারব। তারপর ও সরকারের এই সিদ্ধান্ত কে স্বাগত জানাই।আমরা চেষ্টা করছি সরকারের নির্দেশনা মতো ব্যবসা পরিচালনা করতে।  আমাদের মার্কেটের পক্ষ থেকে বারবার চেষ্টা করছি সরকারের নির্দেশনা মতো মানুষকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে চলতে। কে শুনে কার কথা। তবে যারা সচেতন তারা ঠিকই মাস্ক ও হেন্ড সেনিটাইজার ব্যবহার করে তারা মার্কেটিং করছেন।

বকশী মিছবাউর রহমন বলেন, মহামারী করোনার কারণে ব্যবসায়ীরা একটি বছর যাবত হিমশিম খাচ্ছে এবার ও করোনার দ্বিতীয় ঢেউ তাই আমরা উদ্বিগ্ন কখন কি হয়ে যায়। আল্লাহ বাঁচাইলে এবার ঈদে কিছু ব্যবসা করে কোনমতে টিকে থাকার চেষ্টা।

এ সংক্রান্ত আরোও নিউজ