ঢাকা ০৩:২১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজার কমছে নদনদীর পানি,বৃষ্টি না হওয়ায় স্বস্তি

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৯:১৬:৪২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪
  • / ৫৫১ বার পড়া হয়েছে

মৌলভীবাজার২৪ ডেস্কঃ মৌলভীবাজার বৃষ্টিপাতের পরিমাণ অনেক কম হওয়ায় এবং গত ৪৮ ঘণ্টায় ভারতের চেরাপুঞ্জিতে কোনো বৃষ্টিপাত না হওয়ায় সিলেটসহ মৌলভীবাজার জেলার নদনদীর পানি কমতে শুরু করেছে। এতে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। তবে এখনো সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর ছয় পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

শুক্রবার (২১ জুন) সকাল থেকে মৌলভীবাজার আকাশ ছিল রোদ ঝলমলে।

এদিকে বৃষ্টি না হওয়ায় স্বস্তি ফিরেছে বন্যাক্রান্ত মানুষের মধ্যে। জেলাসহ ভিবিন্ন উপজেলা গুলোতে বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়া বাসাবাড়ির পানিও কমতে শুরু করেছে। পানি কমলেও ভোগান্তি বেড়েছে বানবাসী মানুষের।

বন্যাকবলিত জেলার ৭টি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও পৌর শহরের অধিকাংশ মানুষ। এর মধ্যে অন্যতম বন্যাকবলিত জেলার বড়লেখা, কুলাউড়া, জুড়ী উপজেলার হাকালুকি হাওর তীরের মানুষ। মনু, ধলাই ও কুশিয়ারা নদীর তীরবর্তী রাজনগর, সদর উপজেলা ও কমলগঞ্জ উপজেলার লোকজনও বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

মৌলভীবাজার কমছে নদনদীর পানি,বৃষ্টি না হওয়ায় স্বস্তি

আপডেট সময় ০৯:১৬:৪২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪

মৌলভীবাজার২৪ ডেস্কঃ মৌলভীবাজার বৃষ্টিপাতের পরিমাণ অনেক কম হওয়ায় এবং গত ৪৮ ঘণ্টায় ভারতের চেরাপুঞ্জিতে কোনো বৃষ্টিপাত না হওয়ায় সিলেটসহ মৌলভীবাজার জেলার নদনদীর পানি কমতে শুরু করেছে। এতে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। তবে এখনো সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর ছয় পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

শুক্রবার (২১ জুন) সকাল থেকে মৌলভীবাজার আকাশ ছিল রোদ ঝলমলে।

এদিকে বৃষ্টি না হওয়ায় স্বস্তি ফিরেছে বন্যাক্রান্ত মানুষের মধ্যে। জেলাসহ ভিবিন্ন উপজেলা গুলোতে বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়া বাসাবাড়ির পানিও কমতে শুরু করেছে। পানি কমলেও ভোগান্তি বেড়েছে বানবাসী মানুষের।

বন্যাকবলিত জেলার ৭টি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও পৌর শহরের অধিকাংশ মানুষ। এর মধ্যে অন্যতম বন্যাকবলিত জেলার বড়লেখা, কুলাউড়া, জুড়ী উপজেলার হাকালুকি হাওর তীরের মানুষ। মনু, ধলাই ও কুশিয়ারা নদীর তীরবর্তী রাজনগর, সদর উপজেলা ও কমলগঞ্জ উপজেলার লোকজনও বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছেন।