ঢাকা ১১:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শ্রীমঙ্গলে আদিবাসী দিবস পালন

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১১:৫৮:২১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ অগাস্ট ২০২২
  • / ২৭৭ বার পড়া হয়েছে

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি : “ঐতিহ্যগত বিদ্যা সংরক্ষণ ও বিকাশে আদিবাসী নারী সমাজের ভূমিকা” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে শ্রীমঙ্গলে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের উদ্যোগে আর্ন্তজাতিক আদিবাসী দিবস ২০২২ পালন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে শহরে বর্ণাট্য র‌্যালী বের করা হয়।

পরে মহসিন অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি জনক দেববর্মার এর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক সুমন দেববর্মার সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়।

আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাজী লিটন আহমেদ,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিতালী দত্ত,সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রবীর দেববর্মা, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সভাপতি দীপেন্দ্র ভট্রাচাযর্, হিন্দু,বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ উপজেলা শাখার জনসংযোগ সম্পাদক জহর তরফদার, ক্যাথলিক ধর্মপল্লীর পুরোহিত ফাদার নিকোলাস বাড়ৈ সিএসসি,খ্রীষ্টান এসোসিয়েশন উপজেলা শাখার সভাপতি ডমিনিক সরকার রনি, বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের উপদেষ্টা চিত্তরঞ্জণ দেববর্মা,সাংবাদিক সালেহ এলাহি কুটি,আদিবাসী নেতা সামুয়েল জোসেফ হাজং,খাসি সোশ্যাল কাউন্সিলের সাধারন সম্পাদক এলিসন সুঙ প্রমূখ।

আলোচনা সভা শেষে বিভিন্ন আদিবাসী সাংস্কৃতিক দলের নিজস্ব সংস্কৃতির গান ও নৃত্য অনুষ্ঠানকে প্রাণবন্ত করে তুলে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আদিবাসী জনগোষ্টির মধ্যে খাসি, ত্রিপুরাা,গারো, সাঁওতাল,মুন্ডা,চা জনগোষ্টি সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ,সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন ভাষা, ধর্মাচর্চা, পারিবারিক জীবন ব্যবস্থা সবকিছুতেই ভিন্নতা নিয়ে বসবাসকারী আদিবাসীরা আজও এদেশে ভূমির মালিকানা পায়নি, একথা উল্লেখ করে আদিবাসী নেতারা আরও বলেন ভূমি উন্নয়নের নামে তাদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে,সমতলের আদিবাসীদের কোন ভূমি কমিশন নেই । তারা দিন দিন ভূমিহীন হয়ে পরছে একারনেই আদিবাসীরা আজও স্থায়ী আবাস ভূমি থেকে বঞ্চিত রয়েছে।

এদেশে আদিবাসীরা প্রতিনিয়ত শোষন, বঞ্চনা বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। আদিবাসীরা এদেশে উপজাতি বা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী নয় এবং সাংবিধানিকভাবে সমান নাগরিক অধিকারের দাবিদার বলে নেতারা উল্লেখ করেন।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

শ্রীমঙ্গলে আদিবাসী দিবস পালন

আপডেট সময় ১১:৫৮:২১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ অগাস্ট ২০২২

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি : “ঐতিহ্যগত বিদ্যা সংরক্ষণ ও বিকাশে আদিবাসী নারী সমাজের ভূমিকা” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে শ্রীমঙ্গলে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের উদ্যোগে আর্ন্তজাতিক আদিবাসী দিবস ২০২২ পালন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে শহরে বর্ণাট্য র‌্যালী বের করা হয়।

পরে মহসিন অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি জনক দেববর্মার এর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক সুমন দেববর্মার সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়।

আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাজী লিটন আহমেদ,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিতালী দত্ত,সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রবীর দেববর্মা, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সভাপতি দীপেন্দ্র ভট্রাচাযর্, হিন্দু,বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ উপজেলা শাখার জনসংযোগ সম্পাদক জহর তরফদার, ক্যাথলিক ধর্মপল্লীর পুরোহিত ফাদার নিকোলাস বাড়ৈ সিএসসি,খ্রীষ্টান এসোসিয়েশন উপজেলা শাখার সভাপতি ডমিনিক সরকার রনি, বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের উপদেষ্টা চিত্তরঞ্জণ দেববর্মা,সাংবাদিক সালেহ এলাহি কুটি,আদিবাসী নেতা সামুয়েল জোসেফ হাজং,খাসি সোশ্যাল কাউন্সিলের সাধারন সম্পাদক এলিসন সুঙ প্রমূখ।

আলোচনা সভা শেষে বিভিন্ন আদিবাসী সাংস্কৃতিক দলের নিজস্ব সংস্কৃতির গান ও নৃত্য অনুষ্ঠানকে প্রাণবন্ত করে তুলে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আদিবাসী জনগোষ্টির মধ্যে খাসি, ত্রিপুরাা,গারো, সাঁওতাল,মুন্ডা,চা জনগোষ্টি সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ,সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন ভাষা, ধর্মাচর্চা, পারিবারিক জীবন ব্যবস্থা সবকিছুতেই ভিন্নতা নিয়ে বসবাসকারী আদিবাসীরা আজও এদেশে ভূমির মালিকানা পায়নি, একথা উল্লেখ করে আদিবাসী নেতারা আরও বলেন ভূমি উন্নয়নের নামে তাদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে,সমতলের আদিবাসীদের কোন ভূমি কমিশন নেই । তারা দিন দিন ভূমিহীন হয়ে পরছে একারনেই আদিবাসীরা আজও স্থায়ী আবাস ভূমি থেকে বঞ্চিত রয়েছে।

এদেশে আদিবাসীরা প্রতিনিয়ত শোষন, বঞ্চনা বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। আদিবাসীরা এদেশে উপজাতি বা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী নয় এবং সাংবিধানিকভাবে সমান নাগরিক অধিকারের দাবিদার বলে নেতারা উল্লেখ করেন।