1. moulvibazar24.backup@gmail.com : admin :
  2. mrrahel7@gmail.com : rahel Ahmed : rahel Ahmed
  3. bm.ssc.batb@gmail.com : Shahab Ahmed : Shahab Ahmed
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৪:৩২ অপরাহ্ন

শ্রীমঙ্গলে ৬০ বছর পর খাস জমি উদ্ধার

  • প্রকাশের সময় বুধবার, ৬ এপ্রিল, ২০২২
  • ৪২৬ পঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি: শ্রীমঙ্গলে দীঘ ৬০ বছর পর প্রভাবশালীদের কব্জায় থাকা বিপুল পরিমান সরকারী খাস জমি উদ্ধার করেছে উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলার সদর ইউনিয়নের বালিশিরা মৌজা ও আশিদ্রোণ ইউনিয়নের আশিদ্রোন এবং উত্তরসূর মৌজায় অবস্থিত এসব খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দিনব্যাপী অভিযান চালায় উপজেলা প্রশাসন।

এসময় প্রভাবশালীদের দখলে থাকা সদর ইউনিয়নের বালিশিরা মৌজায় ৬ একর এবং আশিদ্রোন ইউনিয়নের আশিদ্রোন এবং উত্তরসূর মৌজায় ৩ একর খাস জমি উদ্ধার করা হয়।

শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম এর নেতৃত্বে জমি উদ্ধার কাজে অংশ নেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নেছার উদ্দিন, শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শামীম অর রশীদ তালুকদার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান। স্থানীয়রা জানান, এসব জমির বেশীর ভাগ অংশ উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আফজল হকের দখলে ছিল। তিনি দীর্ঘদিন এসব জমি দখলে রেখে চাষাবাদ করে আসছিলেন।
জানতে চাইলে শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আফজল হক বলেন, দীর্ঘ ৬০ বছরের বেশী সময় ধরে এসব জায়গায় ফসল ফলিয়ে আসছিলাম। এই জমি স্থায়ী বন্দোবস্ত নিতে মন্ত্রনালয়ে আবেদন করেছি। কিন্ত বন্দোবস্ত না দিয়ে সরকারী লোকজন এসে এসব জমি অধিগ্রহন করে নেন।

শ্রীমঙ্গলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নেছার উদ্দিন বলেন, এই সরকারী জমিগুলো দীর্ঘদিন যাবত বেদখল ছিল। প্রশাসনিক ভাবে এসব জমি উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন, এসব জমিতে ভূমি ও গৃহহীন ৩শ’ পরিবারের জন্য ঘর নির্মাণ করার করা হবে। আশা করছি খুব শীঘ্রই ঘর নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে বলে তিনি জানান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন থেকে একটি মহল অবৈধভাবে এসব জমি ভোগ দখল করে আসছিল। আমরা এসব খাসজমি চিহ্নিত করে অবৈধ দখলদারদের কাছ থেকে উদ্ধার করেছি। তিনি আরও জানান, উদ্ধারকৃত এই খাস জমিতে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীনদের মাঝে বন্দোবস্ত দিয়ে গৃহ নির্মাণ করে দেওয়া হবে।

 

নিউজটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই সংক্রান্ত আরোও খবর