1. moulvibazar24.backup@gmail.com : admin :
  2. mrrahel7@gmail.com : rahel Ahmed : rahel Ahmed
  3. bm.ssc.batb@gmail.com : Shahab Ahmed : Shahab Ahmed
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০২:০২ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
আইজিপির পক্ষ থেকে মৌলভীবাজারের বন্যা কবলিত এলাকায় ত্রাণ বিতরণ পরিবেশের উন্নয়ন দৃশ্যমান করতে কর্মকর্তাদের কঠোর নির্দেশ পরিবেশমন্ত্রীর মৌলভীবাজার জেলা জাসাসের আহবায়কে উদ্যোগে পানিবন্দী পরিবারে মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ শ্রীমঙ্গল উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল মাহির কোলজুড়ে আসেনি কোনো সন্তান শ্রীমঙ্গলে ‘‘ইউনিয়ন পরিষদের বাজেটে ওয়াশ বরাদ্ধ,প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি’’ শীর্ষক এক কনসালটেশন কর্মশালা পুলিশের অভিযানে কুলাউড়ায় ইয়াবাসহ ২ কারবারি গ্রেফতার কোটচাঁদপুরে  কিশোরি ক্লাবের সচেতনতামূলক সভা কোটচাঁদপুরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের স্টোর রুমে আটকে রাখার অভিযোগ মৌলভীবাজারে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা বিষয়ক কর্মশালা

সীতাকুন্ডে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় কুলাউড়ার ছেলে নিখোঁজ

  • প্রকাশের সময় রবিবার, ৫ জুন, ২০২২
  • ৯৯৮ পঠিত

মৌলভীবাজার২৪ ডেস্কঃ দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছে। নিজের ফেইসবুক আইডি থেকে সেটা লাইভ করছিলেন কাছ থেকে‌ই। হঠাৎ-ই ভয়াবহ বিস্ফোরণ। আশপাশের সবকিছু অন্ধকার হয়ে যায়। ফেইসবুকে লাইভে শব্দ শুনে এর ভয়াবহতা উপলব্ধি করা যাচ্ছিলো।‌ মুহূর্ত‌ই যেন আগুন সবকিছু ছাড়খাড় করে দিয়েছে। ডিপোর আশপাশের সবকিছু হয়েগেছে মৃত্যুপুরী। এই বিস্ফোরণের পর থেকেই নিখোঁজ রয়েছেন বিস্ফোরণের সময় লাইভে থাকা অলিউর রহমান।

শনিবার (৪ জুন) রাত সাড়ে ৯টার দিকে এ আগুনের ঘটনা ঘটে। চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন লাগার পর ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন দেড় শতাধিক।

নিখোঁজ অলিউর রহমান মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের ফটিগুলী গ্ৰামের আশিক মিয়ার ছেলে। সে সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে শ্রমিকের কাজ করতেন।

অলিউর রহমানের সহকর্মী রুয়েল বলেন, আমরা এই সময়টাতে খাবারের জন্য ডিপো থেকে চলে আসি। কিন্তু ফেইসবুকে লাইভ করার জন্য অলিউর সেখানে রয়ে যায়। তার লাইভ ভিডিও দেখলেই বুজতে পারবেন।

রুয়েলের সাথে কথা বলছিলেন তখনই বিকট শব্দে বিস্ফোরণ হচ্ছিলো। রূয়েল বর্ণানা দিয়ে বলেন, খুব‌ই ভয়াবহ অবস্থা। ডিপোর ভিতরে থাকা কেউ বেঁচে থাকার কথা নয়। আর অলিউর বেচে থাকলে আমার কাছেই আসতো। আমরা একসাথে কাজ করি। এক জায়গায় থাকি।

তিনি আরো জানান, বিস্ফোরণের সময়টা রাতের খাবারের সময় ছিলো। নয়তো আরো অনেক অনেক লোক মারা যেতেন।

নিউজটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই সংক্রান্ত আরোও খবর