ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি বইয়ে তথ্য নগ্ন ছবি প্রকাশ হওয়ায় মেলানিয়াকে সান্তনা দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

0 388

যুক্তরাষ্ট্রে যেন এক পারমাণবিক বোমা ছুড়ে মেরেছেন লেখক মাইকেল উলফ। তার আঘাতে কঠোর নিরাপত্তাবেষ্টিত হোয়াইট হাউজের অন্দরমহলের সব গোপন ফাঁস হয়ে পড়েছে। তোলপাড় চলছে পুরো যুক্তরাষ্ট্র, তথা বিশ্বজুড়ে। মাইকেল উলফ লিখেছেন, ‘ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি ইনসাইড দ্য ট্রাম্প হোয়াইট হাউজ’। বইটি প্রকাশ হয়েছে গত শুক্রবার। আর তা কেনার জন্য পাঠকের লাইন পড়ে গেছে বুকস্টলগুলোতে।
বইটির কিছু অংশের উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন মিডিয়ায় খবর প্রকাশিত হচ্ছে। এতে বলা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে বর্তমান ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের মডেলিংয়ের নগ্ন ছবি প্রকাশ হয়ে পড়ে। তখন তাকে উদ্বিগ্ন না হতে পরামর্শ দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বলেছিলেন, তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরাজিত হবেন। ওই বইয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে একজন মারাত্মক অবিশ্বাসী স্বামী হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে। প্রকাশ হয়েছে মেলানিয়া ট্রাম্পের ওই নগ্ন ছবিগুলো নিয়ে ট্রাম্প ও মেলানিয়ার মধ্যে আবেগঘন কথোপকথনও। উল্লেখ্য, মেলানিয়ার যে ছবিগুলো প্রকাশ হয়ে পড়েছিল তা ছিল তার মডেলিং ক্যারিয়ারের শুরুর দিককার। লোকালয়ের বাইরে তোলা ওই ছবি নিয়ে বেশ ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন মেলানিয়া। যখন ওই ছবি ধারণ করা হয়েছিল তখন তিনি স্লোভেনিয়ার স্বল্প পরিচিত একজন মডেল ছিলেন। তার নাম তখন ছিল মেলানিয়া কèাউস। এ সব ছবি প্রকাশ হয়ে পড়ার পর অবুঝের মতো হয়ে পড়েন মেলানিয়া। মেলানিয়া তার স্বামী, তখনকার প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থী ট্রাম্পকে বলেন, এ বিষয়টি তিনি আর মেনে নিতে পারছেন না। ২০১৬ সালের জুলাইয়ে ওই ছবিগুলো প্রকাশ হলেও মাইকেল উলফ তার বইয়ে বলেন নি, এ ছবি নিয়ে ট্রাম্পের সঙ্গে কখন তিনি মুখোমুখি হয়েছিলেন। তাকে শান্তনা দেয়ার চেষ্টা করেন ট্রাম্প। তিনি তাকে বুঝাতে চান, নির্বাচনে তিনি জিতবেন না। উল্লেখ্য, মাইকেল উলফের লেখা এই বইটির প্রকাশনা বন্ধ করার চেষ্টা করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তার আইনজীবীর মাধ্যমে বইটির প্রকাশনা বন্ধের জন্য চিঠি পাঠান। যেদিন বইটি বাজারে আসার কথা ছিল তার চারদিন আগেই বইটি বাজারে প্রকাশ হলো। ট্রাম্প বলেছেন, এই বইটি হলো মিথ্যায় ভরা। ভুল তথ্য দেয়া হয়েছে। এমন সূত্র ব্যবহার করা হয়েছে, যার কোনো অস্তিত্ব নেই। তবে বইটি প্রকাশিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তা অনলাইন লাইব্রেরি অ্যামাজনের শীর্ষে উঠে এসেছে। এর আগে জানানো হয়, ওই বইয়ে বলা হয়েছে, নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বিজয়ী হচ্ছেন, এটা যে রাতে নিশ্চিত হন সে রাতে কান্নায় ভেঙে পড়েন মেলানিয়া ট্রাম্প। বলা হয়, এটা ছিল আনন্দের কান্না। তবে তা আগেভাগেই অস্বীকার করেছেন মেলানিয়া।

Leave A Reply

Your email address will not be published.