ঈদ যতোই ঘনিয়ে আসছে মৌলভীবাজরে হাটগুলোতে ক্রেতাদের ভিড় বাড়ছে

462

মো: মাহবুবুর রহমান রাহেল: ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে মৌলভীবাজারের বিভিন্ন এলাকায় জমে উঠতে শুরু করেছে কোরবানির পশুর হাট।গরুর বাজারে ছোট-বড় ট্রাকে করে দূর-দূরান্ত থেকে আসছে দেশীয় গরু। সেইসঙ্গে বেলা বাড়ার সাথে সাথেই বাড়ছে ক্রেতাদের ভিড়। ফলে ক্রেতা-বিক্রেতাদের আনাগোনায় সরগরম হয়ে উঠছে গরুর হাট।

ঈদ যতোই ঘনিয়ে আসছে, হাটগুলোতে ক্রেতা-বিক্রেতাদের ভিড় ততোই বাড়ছে। তবে সে অনুপাতে এখনো বিক্রি বাড়েনি।

মৌলভীবাজার পৌর এলাকার প্রধান পশুর হাটের ইজারাদার মো: যুবায়ের আহম্মদ মৌলভীবাজার টোয়েন্টিফোর ডট কমকে জানান, বাজারে ক্রয়-বিক্রয় এখনো জমে উঠেনি, তবে আশাকরি অতি শিঘ্রই গরুর বাজার জমে উঠবে।

শুক্রবার (৯ আগষ্ট) মৌলভীবাজার শহরের এম সাইফুর রহমান স্টেডিয়াম মাঠের পশুর হাটে গিয়ে দেখা যায়, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার দেশি-গরু, ছাগল, ভেড়াসহ পশুর সংখ্যা অনেক বেশি।

বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জেলার সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারত ও নেপাল থেকে কিছুসংখ্যক গরু-ছাগল এলেও গত বছরের তুলনায় তা কম। এজন্য দেশি গরুর দামি এবার একটু বেশি।

সিরাজগঞ্জ থেকে আসা পশু ব্যবসায়ী রহিম মিয়া মৌলভীবাজার টোয়েন্টিফোর ডট কমকে  জানান, ৪২ টি গুরু নিয়ে এসেছি  তেমন বিক্রি হচ্ছেনা। আশা করছি শেষ সময়ের আগেই বিক্রি করতে পারব।

গরু কিনতে আসা ক্রেতা সুমন মিয়া  ও জীবন আহম্মদ জানান, সামর্থ্য অনুযায়ী কোরবানির পশু কেনার জন্য চেষ্টা করছেন। তবে এবার দাম বেশি। গতবার যে গরু ৩০ হাজার টাকা কিনেছেন, এবার একই মাপের গরু ৫০ হাজার টাকায় কিনতে হচ্ছে।

এদিকে, জেলার মোকাম বাজার, ব্রাহ্মণবাজার, মুন্সিবাজার, চৌধুরীবাজার, রবিরবাজার, দীঘিরপাড় বাজার, আদমপুর বাজার, মাধবপুর বাজার, ফুলতলা বাজার, জুড়ি বাজার, বড়লেখা বাজার, শাহাবাজপুর বাজার কুলাউড়া পৌরসভা বাজার, শেরপুরবাজার ও শ্রীমঙ্গলবাজারে গরুর হাটও বেশ জমে উঠছে বলে জানা গেছে।
এদিকে, পশুর হাটের নিরাপত্তা নিয়ে সচেষ্ট পুলিশ। র‌্যাবের টহল জোরদার করা হয়েছে। সেইসঙ্গে রয়েছে ভ্রাম্যমাণ টিম রয়েছে।