সৌদিতে মারা যাওয়া ছেলের কফিন আনতে গিয়ে লাশ হলেন বাবা

1,410

সৌদিআরবে মারা যাওয়া ছেলের কফিন মরদেহ বিমানবন্দর থেকে আনতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিজেই লাশ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার আলী আহমদ (৬০)। তিনি উপজেলার তেলিয়াপাড়া এলাকার মৃত সারা মিয়ার ছেলে।

শুক্রবার (৯ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সৈয়দপুর এলাকায় কফিনবাহী অ্যাম্বুলেন্স রাস্তা থেকে প্রায় ২০ ফুট নিচের খাদে পড়ে যায়। খবর পেয়ে শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ আলী আহমদকে মৃত অবস্থায় এবং সৌদিআরব থেকে আসা তার ছেলের মরদেহের কফিনটি উদ্ধার করে।

হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ওয়াহিদুজ্জামান জানান, মাধবপুর উপজেলার তেলিয়াপাড়া প্রলয়াবাজ এলাকার আলী আহমদের ছেলে জজ মিয়া (২২) প্রায় এক মাস পূর্বে সৌদি আরবে মারা যান। শুক্রবার বিকেলে তার মরদেহের কফিন সিলেট আন্তর্জাতিক বিমানবন্দেরে এসে পৌঁছে। এ সময় ছেলের কফিনটি গ্রহণ করে অ্যাম্বুলেন্সযোগে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন আলী আহমদ।

অ্যাম্বুলেন্সটি সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সৈয়দপুর এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পিকআপ ভ্যান হঠাৎ ভূল সাইডে চলে যায়। তাৎক্ষণিক অ্যাম্বুলেন্সের চালক দুর্ঘটনা এড়াতে চাইলে অ্যাম্বুলেন্সটি রাস্তার পার্শ্ববর্তী প্রায় ২০ ফুট নিচের একটি খাদে পড়ে যায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ছেলের কফিন এবং বাবার মরদেহটি উদ্ধার করে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন ছেলের মরদেহের কফিনটি মাধবপুরে নিয়ে গেছেন। এছাড়া দুর্ঘটনায় নিহত বাবা আলী আহমদের মরদেহ এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শেরপুর হাইওয়ে থানায় ছিল। ময়না তদন্তের জন্য এটিকে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদও হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হবে।