newspaper

মৌলভীবাজারে অস্ত্র মামলায় হারুনের যাবতজ্জীবন

0 198

মো: মাহবুবুর রহমান রাহেল: মৌলভীবাজারের জেএমবির সদস্য জঙ্গি লুৎফুর রহমান হারুন (৪৫) কে অস্ত্র মামলায় যাবতজ্জীবন ও একই সঙ্গে ১০ বছরের কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত। সে মৌলভীবাজারের সিরিজ বোমা হামলার অন্যতম আসামী।

রোববার (৯ জুলাই) দুপুর ১২ টার দিকে মৌলভীবাজার জেলার ২নং বিশেষ ট্রাইব্যুনাল আদালতে বিচারক মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম এ রায় ঘোষনা করেন।

লুৎফুর রহমান হারুন মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের উত্তর বুধপাশা এলাকার মো: আজির উদ্দিন এর ছেলে।

সরকার পক্ষের আইনজীবী এপিপি কৃপা সিন্ধু দাস মৌলভীবাজার টোয়েন্টিফোর ডট কমকে জানান,গত ১৭ জুন ২০১৬ সালে কুলাউড়া উপজেলার বুধপাশা গ্রাম থেকে ১টি দেশীয় এলজি,ছোড়া ও কারতুজহসহ সারা দেশে সিরিজ বোম হামলার সাথে জড়িত জিএমবির সদস্য জঙ্গি লুৎফুর রহমান হারুন (৪৫)কে আটক করে পুলিশ। মামলার বাদী ছিলেন উপপরিদর্শক (এসআই) আবু আল মামুন। আজ রোববার অস্ত্র মামলায় বিভিন্ন ধারায় তাকে যাবতজ্জীবন ও একই সঙ্গে ১০ বছরের কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

তিনি আরো জানান তার বিরুদ্ধে ঢাকাসহ সারাদেশে সিরিজ বোমা হামলার মামলা চলছে।

আসামীর পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন আইনজীবী আজিজুর রব চৌধুরী।

জানায় লুৎফুর রহমান হারুন জঙ্গী প্রশিক্ষন প্রাপ্ত, বিশেষ করে সে অস্ত্র ও বোমা চালনায় পারদর্শী। তার বিরুদ্ধে কুলাউড়া থানার মামলা নং-০৭ তাং-০১/০২/০৫ ইং ধারা- বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের ৩(ক)/৪(খ)/৫, মৌলভীবাজার মডেল থানার মামলা নং-১৪, তাং-১৭/০৮/০৫ ইং ধারা- বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের ৩/৪/৬, মৌলভীবাজার মডেল থানার মামলা নং-১৫ তাং-১৭/০৮/০৫ ইং, ধারা-বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের ৪ ও ৫, মৌলভীবাজার মডেল থানার মামলা নং-১৬ তাং-১৭/০৮/০৫ ইং, ধারা-বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের ৪ ও ৫, মৌলভীবাজার মডেল থানার মামলা নং-১৮ তাং-১৭/০৮/০৫ ইং, ধারা-বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের ৪ ও ৫ ধারার আসামী।

লুৎফুর রহমান হারুন ২০০৫ সাল হইতে ২০০৭ সাল পর্যন্ত ভারতের দেওবন্দ মদ্রাসায় লেখাপড়া করে। দিল্লী রেলষ্টেশন হইতে এ্যাক্লুসিভ প্লানিং এ্যাক্ট এবং ফরেনার্স এ্যাক্ট-এ আটক হইয়া সে ২০০৭ সাল হইতে ২০১৫ সাল পর্যন্ত ভারতের তিহার জেলে যাবৎজীবন সাজা প্রাপ্ত আসামী হিসাবে সাজা ভোগ করে। ইতোপূর্বে ধৃত আসামী কুলাউড়ার পৃথিমপাশাস্থ শাহ ডিংগীর মাজারে ২০০৪ সালে বোমা বিস্ফোরন ঘটায়।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.